চুয়াডাঙ্গায় দুষ্টুমি ছাড়াতে সন্তানের দুপায়ে শিকল বেঁধে গৃহবন্দি!

sangbadbd24 sangbadbd24

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১২:১৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০২০
সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

ছেলের দুষ্টুমি ছাড়াতে ১১ বছর বয়সী ছেলেকে দু’পায়ে শিকল পরিয়ে গৃহবন্দি করে রেখেছেন বাবা-মা।

চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের বেলগাছি রেলগেট এলাকার ঘটনা এটি। শিশু সাগর বেলগাছি মুসলিমপাড়ার আলমসাধু চালক আকবর আলীর ছেলে। তার মায়ের নাম শিউলী ওরফে পাখি।

তার পরিবার জানায়, সাগর দুষ্টু প্রকৃতির কিশোর। কারো কোনো কথাই শোনতে চায় না সে। বেপরোয়া ও দুরন্তপনা স্বভাব তার। ওর দুষ্টুমি থামাতে না পেরে এর আগেও ওর বাবা একবার পায়ে বেড়ি পরিয়ে ঘরে বন্দি করে রেখেছিলেন। কিছুদিন পর বেড়ি খুলে দেয়া হলে সাগর আবারও দুষ্টুমি শুরু করে।

দুষ্টুমির কারণে অনেকেই মারধর করে তাকে। দুষ্টুমির কারণে সাগরকে অন্যরা প্রায়ই মারধর করে দেখে বাবা তার পায়ে আবারও বেড়ি পরিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নেন।

এজন্য রোববার বিকালে বেলগাছি রেলগেটের জাহিদুল ইসলামের ওয়েল্ডিংয়ের দোকানে সাগরকে নিয়ে যান আকরব। বৈদ্যুতিক ঝালাই দিয়ে বেড়ি পরানোর হয় সাগরের পা ঝলসে যায়। এসময় হাউমাউ করে কেঁদে উঠে সাগর। তবুও তার পা থেকে বেড়ি খোলেননি বাবা।

রোববার সন্ধ্যায় আকবর আলীর বাড়ি গিয়ে দেখা গেছে শিশু সাগরের দু’পায়ে বেড়ি। বেড়ির পাশেই লাগানো হয়েছে সিলক্রিম। সেখানে কাপড় জড়িয়ে রাখা হয়েছে। শিশু সাগরের চোখেমুখে দেখা যায় কষ্টের ছাপ।

তোমাকে কেন বেড়ি পরানো হয়েছে-এই প্রতিবেদকের এমন প্রশ্ন শুনে সাগর ভয়ে জরোসড়ো হয়ে দরজার দিকে তাকায়। পরে তার মা শিউলী খাতুন জানান, সাগরকে কিছুতেই বশে রাখা যায় না। সকালে আলামিন নামের একজন ওকে খুব মারধর করেছে। অপবাদও দিয়েছে। সব কিছু শুনে ওর বাবা পায়ে বেড়ি পরিয়ে দিয়েছে।

মা হয়ে সন্তানের এমন দশা মেনে নিতে আপনার কষ্ট হচ্ছে না- এমন প্রশ্নের জবাব না দিয়ে শিউলী যেন তার অসহায়ত্বটাই তুলে ধরেন।

এ বিষয়ে সোমবার সকালে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খান জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। এটা খুবই অমানবিক। আমি এখনই পুলিশ পাঠিয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’