মিরপুরে জমজমাট জুয়ার আসর ?

sangbadbd24 sangbadbd24

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৪:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৪, ২০২০
সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

 

দেশে কোভিড-১৯ মহামারি ভাইরাস মোকাবেলায় জন সাধারন এর মধ্যে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে সশস্ত্র বাহিনী এবং পুলিশ সদস্যরা। তবে নিরাপত্তার এতো আয়োজনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে স্বাধীন ও স্বাভাবিক ভাবেই রাজধানীর মিরপুরের জমজমাট জুয়ার আসর।

জুয়ার আসরে গুটিকয়েক ব্যক্তি লাভবান হলেও বেশিরভাগই নিঃস্ব হচ্ছে। ব্যবসা-বাণিজ্য, বাড়ি-গাড়িও বিক্রি করছে অনেক জুয়াড়িরা। রীতিমতো জুয়া খেলায় মেতে উঠেছে। তাদের জুয়া খেলা দেখতে হুমড়ি খেয়ে পরছে একজনের উপর অন্যজন।

জানা যায়, রাজধানীর কাফরুল থানা এলাকার ক্ষমতাশালীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে ঊত্তর কাফরুল সরনিকা ভবনের পাশেই ইজাহার মিয়ার বাড়ির ২য় তলায় দির্ঘদিন ধরে চালিয়ে আসছে জুয়া বাণিজ্য।

ক্যাসিনো কান্ড কিংবা শুদ্ধি অভিযানের ঘটনার পরে প্রশাসনের নাকের ডগায় জুয়ার আসর চলছে, যা খুব কমই দেখা গেছে ।

নজিরবিহীন বিষয় হলো কাফরুল থানা পুলিশ ‘চেষ্টা’ করেও নাকি এসব বন্ধ করতে পারছেন না । প্রশাসন এত আন্তরিক হলে জুয়া বন্ধ করা কঠিন হবে কেন?

একই এলাকায় ভাড়া থাকেন কামরুল ইসলাম, তিনি বলেন এই জুয়ার আসরে প্রতিদিনই পুলিশ আসে কিন্ত কাউকে ধরে না থানা পুলিশ ‘ম্যানেজ’ করেই চালায়, জুয়ার আসরে দু’একজন লাভবান হলেও বেশিরভাগই নিঃস্ব হয় আবার কেউ কেউ সাংসারিক জিনিস কেনার বদলে অনেকে জিনিসপত্র বেচে জুয়ার আসরে নিঃস্ব করে দেয় কিছু বললেই ইজাহারের এর পালিত সন্ত্রাসীরা মৃত্যু”র হুমকি দেয় তাই ভয়ে কেউ কিছু বলেন না ।

সূত্রে জানা যায়, সকাল হতে গভীর রাত পযন্ত এই জুয়ার আসর চলে । বিশেষ করে বিকাল থেকে জমজমাট বেশি হয় এ আসর। লাখ লাখ টাকা লেনদেন হয় আসরে। জুয়াড়িদের বেশিরভাগই তরুণ, পেশায় ব্যবসায়ী-চাকরিজীবী। অন্যদিকে জুয়া ও মাদকের নেশায় স্থানীয় এক শ্রেণির তরুণরা আসক্ত হচ্ছে।

এদিকে স্থানীয়রা বলছেন ,সারাবিশ্ব যখন করোনা তাণ্ডবে আতঙ্কিত, ঠিক তখনি আমাদের এলাকায় অর্ধশত যুবক এক জায়গায় জড়ো হয়ে জুয়ার আসরে এমন প্রশ্নটি এলাকার সবার মনে বারবারই উঠে আসে। কিন্ত এই ঘটনা নতুন কিছু নয়, বিগত ১ বছর ধরে জুয়ার এ বিষয়টি দেখে আসছি। তাদের কেউ কিছু বলতে গেলেই ইজাহারের বাহিনীর লোকজন এসে হুমকি দেয়। এমনকি গায়ে হাত দিতেও দ্বিধাবোধ করে না।

এ বিষয়ে কাফরুল থানা অফিসার্স ইনচাজ এর মুঠো ফোনে একাধিকার যোগাযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।